ঢাকা,  সোমবার
২২ এপ্রিল ২০২৪

Advertisement
Advertisement

মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার পর্দার আড়ালের ‌নায়ক কে এই ডোনাল্ড লু

প্রকাশিত: ১৮:১৭, ২৫ মে ২০২৩

আপডেট: ১৫:৪১, ২৬ মে ২০২৩

মার্কিন ভিসা নিষেধাজ্ঞার পর্দার আড়ালের ‌নায়ক কে এই ডোনাল্ড লু

সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু

পাকিস্তানে ইমরান খানের দল পিটিআই সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরানোর পেছনে দক্ষিণ মধ্য এশিয়াবিষয়ক মার্কিন এই সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লুকে দায়ী করেছিলেন খোদ ইমরান খান। যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কূটনীতিক লু দীর্ঘদিন ধরেই মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়া দক্ষিণ এশিয়ার কূটনীতিকদের তার কর্মপদ্ধতির জন্য খ্যাতি অর্জন করেছেন তিনি।

তবে পাকিস্তান, নেপাল শ্রীলঙ্কায় নানা ইস্যুতে ডোনাল্ড লুর সম্পৃক্ততা অঞ্চলে বেশ পরিচিত। গত বছর এপ্রিলে বিশ্বকাপজয়ী সাবেক এই তারকা ক্রিকেটার ইমরানের অপসারণের পেছনে ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে সরাসরি ডোনাল্ড লুকে অভিযুক্ত করা হয়।

ইমরান খান অভিযোগ করেছিলেন, মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু তার সরকারকে উৎখাতের জন্যবিদেশি ষড়যন্ত্রেযুক্ত ছিলেন

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছিল, পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ইমরান খানকে একটি হুমকি দিয়েছে। ডোনাল্ড লু পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূতকে সতর্ক করে বলেছিলেন আস্থা ভোটে ইমরান খান বেঁচে গেলে দেশটিকে পরিণতি ভোগ করতে হবে।

মূলত ইমরানকে ক্ষমতা থেকে অপসারণে প্রকাশ্যে ভূমিকা রেখে ডোনাল্ড লু দক্ষিণ এশিয়ায় বিতর্কিত ব্যক্তিত্বে পরিণত হন।

কে এই ডোনাল্ড লু?

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের ফরেন সার্ভিস অফিসার হিসেবে ডোনাল্ড লু ৩০ বছরেরও বেশি সময় ধরে চাকরি করছেন। ২০১০ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ভারতে মার্কিন মিশনের ডেপুটি চিফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

লু দক্ষিণ মধ্য এশিয়ার ওপর নজর রাখা স্টেট ডিপার্টমেন্টের শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক। কিরগিজস্তান এবং আলবেনিয়ায় সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি তিনি দুই দফায় নয়াদিল্লিতে মার্কিন দূতাবাসে দায়িত্ব পালন করেছেন।

প্রতিবেদনে আরও জানা যায়, ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে দক্ষিণ মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী হন ডোনাল্ড লু। এর আগে ২০১৮ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত কিরগিজস্তানে এবং ২০১৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত আলবেনিয়াতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

কর্মজীবনের শুরুতে ডোনাল্ড লু মধ্য এশিয়া দক্ষিণ ককেশাস বিষয়ক অফিসের উপ-পরিচালক, ২০০১ সাল থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ইউরোপীয় বিষয়ক ব্যুরোতে, ১৯৯৭ সাল থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত নয়াদিল্লিতে পলিটিক্যাল অফিসার হিসেবে কাজ করেছেন। এছাড়া  ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত নয়াদিল্লিতে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বিশেষ সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

জানা যায়ন তিনি ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৪ সালের মধ্যে পাকিস্তানের পেশোয়ার কনস্যুলেটে পলিটিক্যাল অফিসার হিসেবেও দায়িত্বপালন করেন।

বার্তাসংস্থা প্রেসএনজা এক প্রতিবেদনে জানা যায়, গত কয়েক বছর ধরে মার্কিন নেতৃত্বাধীন বিতর্কিত মিলেনিয়াম চ্যালেঞ্জ কর্পোরেশন (এমসিসি) কমপ্যাক্টকে অনুমোদনের বিষয়ে দেরি করছিল নেপাল, তখন ডোনাল্ড লু নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবাকে এই বলে সতর্ক করে দেন, ‘মার্কিন সাহায্য সহায়তায় কাটছাঁটহতে পারে।

এমনকি এমসিসি কমপ্যাক্ট মেনে না নিলে নেপাল বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক এবং বহুপাক্ষিক সংস্থার কাছ থেকে যে সহায়তা পাচ্ছে সেটিও বন্ধ হতে পারে সতর্ক করে দেওয়া হয়।

বার্তাসংস্থা প্রেসএনজা বলছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোকে ওয়াশিংটনের লাইনে ফিরিয়ে আনতে নিঃসন্দেহে আক্রমণাত্মক বা সক্রিয় কূটনীতির পথ বেছে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু এই ধরনের জবরদস্তিমূলক কূটনীতির কারণে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতেযুক্তরাষ্ট্রবিরোধীমনোভাব ছড়িয়ে পড়তে পারে। আর সেটি হলে এসব রাষ্ট্রের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতিও হতে পারে।

Advertisement
Advertisement

Notice: Undefined variable: sAddThis in /mnt/volume_sgp1_05/p1kq0rsou/public_html/details.php on line 531