ঢাকা,  বৃহস্পতিবার
১৩ জুন ২০২৪

Advertisement
Advertisement

রোজায় প্রতিদিন কতটুকু পানি পান দরকার

প্রকাশিত: ২১:৫২, ২১ মার্চ ২০২৪

রোজায় প্রতিদিন কতটুকু পানি পান দরকার

পানি পান

পবিত্র রমজানে পানিশূন্যতার একটা আশঙ্কা রয়েই যায়। আর যদি তপ্ত দিন হয় তাহলো তো কথাই নেই। রোজা রেখে কেউ কেউ সাহ্‌রিতে অনেক পানি খেয়ে থাকেন, আবার অনেকে ইফতারের শুরুতেই কয়েক গ্লাস পানি পান করে ফেলেন। সুস্থ থাকার জন্য পানির প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। তবে রোজার সময় পানি কীভাবে খাবেন, তা জানাটা জরুরি।

ইফতার থেকে সাহ্‌রি পর্যন্ত অন্তত দুই লিটার বিশুদ্ধ, নিরাপদ পানি পান করা নিশ্চিত করতে হবে। সে ক্ষেত্রে ইফতার থেকে সাহ্‌রি বা রাতে ঘুমানোর আগ পর্যন্ত ৩০ থেকে ৪০ মিনিট পরপর ১০০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ মিলিলিটার পানি খাওয়া দরকার। বিশেষ করে তারাবিহ নামাজের আগে ও পরে বোতলে পানি রেখে এই সর্বমোট পানি খাওয়ার পরিমাণ নিশ্চিত করা যায়।

এ মৌসুমে রোজায় কার শরীর কেমন হাইড্রেটেড থাকে, ত্বক যেন বিবর্ণ বা মলিন না হয়, কোষ্ঠকাঠিন্য না হয়, কিংবা গ্যাসের সমস্যা যাতে না হয়, সেজন্য পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। পানি ছাড়াও অন্যান্য তরল পান করা যেতে পারে। তরল হিসেবে ডাবের পানি, লেবুর শরবত ও মৌসুমি ফল চিনি ছাড়া জুস করে খেলে এ পুষ্টির চাহিদা পূরণ হয়। দুধও এ সময় উপকারি। দুধে যেমন প্রোটিন ও ফ্যাট পাওয়া যায়, তেমনি ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম অন্যান্য খনিজ লবণের ভালো উৎস। তবে কোল্ড ড্রিংকস, এনার্জি ড্রিংকস, যেকোনো রঙিন পানীয় এবং চা ও কফি রোজায় এড়িয়ে চলবেন। এগুলো পানিশূন্যতা তো দূর করেই না, বরং ক্ষতিকর।

 শিশু ও বয়স্ক ব্যক্তিরা রোজা রাখলে তাঁদের পানি পান পর্যাপ্ত হচ্ছে কি না, সেদিকে লক্ষ রাখা জরুরি।

সতর্কতা

বেশি গরমে যেমন রান্নাঘরে বা শারীরিক পরিশ্রমের ক্ষেত্রে প্রতি এক থেকে দুই ঘণ্টা পরপর ১০ থেকে ১৫ মিনিটের মতো ছায়ায় বিশ্রাম নেওয়া উচিত। সাহ্‌রিতে যদি কিছু না খাওয়ার অভ্যাস থাকে, তবু সাহ্‌রিতে উঠে পানি বা তরলজাতীয় খাবার খাওয়া উচিত। এতে পানিশূন্যতার ঝুঁকি কমবে।

Advertisement
Advertisement

Notice: Undefined variable: sAddThis in /mnt/volume_sgp1_05/p1kq0rsou/public_html/details.php on line 531